মাদারীপুর জেলার সদর থানাধীন বাহাদুরপুর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডবাসীর সহযোগীতায় কাঠের পুল নির্মাণ করা হয়। আলগী থেকে তিথিরপাড়া যাওয়ার একমাত্র ব্রীজ (আকা বেপারীর ব্রীজ নামে পরিচিত) ভেঙ্গে ফেলার কারনে তিথিরপাড়া,কালাপুর, দিঘলপাড়া,পূর্ব দৌলতপুর, খাটপাড়া এলাকার কয়েক হাজার জনগণের যাতায়াতে মারাত্মকভাবে সমস্যার সৃষ্টি হয়। উল্লেখ্য উক্ত গ্রামগুলোর কয়েকশ ছাত্রছাত্রী আলগী প্রাথমিক ও হাই স্কুলে এবং জেলা সদরের নাজিমুদ্দিন ও চরমুগরিয়া কলেজে পড়াশুনা করে। প্রতিদিন কয়েক হাজার লোক এই ব্রীজ দিয়ে কালিরবাজার,চরমুগরিয়া,মাদারীপুর, নতুন রাজারহাট, হবিগঞ্জহাট,ত্রিভাগদীহাট,ঘটকচর যাতায়াত করে। অসুস্থ রোগীদের জেলা সদরের হাসপাতালে নেওয়ার একমাত্র পথ।


এই ব্রীজটাই ছিল অত্র এলাকাবাসীর যোগাযোগের একমাত্র মাধ্যম। একটা ব্রীজ ভেঙ্গে নতুন ব্রীজ করতে হলে জনগণের চলাচলের জন্য বিকল্প ব্যবস্থা অবশ্যই ইউনিয়ন পরিষদ বা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ থেকে করে থাকে। ইউনিয়ন পরিষদের ওয়ার্ড মেম্বার ও চেয়ারম্যানের থেকে কোন প্রকার সাহায্য,আশ্বাস ও সহযোগীতা না পেয়ে পরপর্তীতে অত্র এলাকাবাসী সবাই মিলে নিজেদের অর্থের দ্বারা (২০০,৩০০,৫০০,১০০০,২০০০ টাকা করে চাদা তুলে) কাঠের পুল নির্মাণ করেন। কাঠের পুল নির্মাণে তিথিরপাড়া নিবাসী মোঃ আলী ফকির,সাবেক মেম্বার মোস্তফা হাং,সাইদুল বেপারী,দেলোয়ার বেপারী,পূর্ব দৌলতপুরের নূরুল হক বেপারী,পায়েল বেপারী বিশেষ ভূমিকা রাখেন এবং উক্ত এলাকাবাসীর জনগণও সার্বিক সহযোগীতা করেন। কিন্তু বর্তমান মেম্বার ও চেয়ারম্যানের ভূমিকায় এলাকাবাসী বিস্মিত ও হতবাক ।



নাইম হোসেন সেলিম


দুরন্ত বার্তা

Share To:

A-TechBD

Post A Comment:

0 comments so far,add yours