2018
আসন্ন জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রাপ্ত সকল প্রার্থীদের নাম ও আসন।






































































































































































































































































































































































































































































































































ঢাকা বিভাগচট্টগ্রাম বিভাগ
নামআসননামআসন
প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাগোপালগঞ্জ-৩মুহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেলচট্টগ্রাম-৯
শেখ ফজলুল করিম সেলিমগোপালগঞ্জ-২সামশুল হক চৌধুরীচট্টগ্রাম-১২
লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) ফারুক খানগোপালগঞ্জ-১আবদুল মতিন খসরুকুমিল্লা-৫
অ্যাডভোকেট কামরুল ইসলামঢাকা-২আ ক ম বাহাউদ্দিন বাহারকুমিল্লা-৬
নসরুল হামিদ বিপুঢাকা-৩অধ্যাপক আলী আশরাফকুমিল্লা-৭
হাজি মোহাম্মদ সেলিমঢাকা-৭আ হ ম মুস্তফা কামালকুমিল্লা-১০
সাবের হোসেন চৌধুরীঢাকা-৯মুজিবুল হককুমিল্লা-১১
শেখ ফজলে নূর তাপসঢাকা-১০নিজামউদ্দিন হাজারীফেনী-২
এ কে এম রহমতুল্লাহঢাকা-১১ওবায়দুল কাদেরনোয়াখালী-৫
আসাদুজ্জামান খাঁন কামালঢাকা-১২ডা. দীপু মনিচাঁদপুর-৩
সাদেক খানঢাকা-১৩বি এম ফরহাদ হোসেন সংগ্রামব্রাহ্মণবাড়িয়া-১
আসলামুল হকঢাকা-১৪আনিসুল হকব্রাহ্মণবাড়িয়া-৪
কামাল আহমেদ মজুমদারঢাকা-১৫ক্যাপ্টেন (অব.) এবি তাজুল ইসলামব্রাহ্মণবাড়িয়া-৬
ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লাহঢাকা-১৬খুলনা বিভাগ
আ ক ম মোজাম্মেল হকগাজীপুর-১নামআসন
জাহিদ আহসান রাসেলগাজীপুর-২পঞ্চানন বিশ্বাসখুলনা-১
ইকবাল হোসেন সবুজগাজীপুর-৩শেখ জুয়েলখুলনা-২
সিমিন হোসেন রিমিগাজীপুর-৪মুন্নুজান সুফিয়ানখুলনা-৩
মেহের আফরোজ চুমকিগাজীপুর-৫আবদুস সালাম মুর্শেদীখুলনা-৪
লেফটেন্যান্ট কর্নেল(অব) নজরুল ইসলাম হিরুনরসিংদী-১নারায়ণ চন্দ্র চন্দখুলনা-৫
জহিরুল হক ভূঁইয়ানরসিংদী-৩শেখ হেলাল উদ্দীনবাগেরহাট-১
অ্যাডভোকেট নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূননরসিংদী-৪শেখ তন্ময়বাগেরহাট-২
গোলাম দস্তগীর গাজীনারায়ণগঞ্জ-১হাবিবুন্নাহারবাগেরহাট-৩
নজরুল ইসলাম বাবুনারায়ণগঞ্জ-২মাশরাফি বিন মুর্তজানড়াইল-২
এ কে এম শামীম ওসমাননারায়ণগঞ্জ-৪ডা. আ ফ ম রুহুল হকসাতক্ষীরা-৩
কাজী কেরামত আলীরাজবাড়ী-১এস এম জগলুল হায়দারসাতক্ষীরা-৪
খন্দকার মোশাররফ হোসেনফরিদপুর-৩ফরহাদ হোসেন দোদুলমেহেরপুর-১
কাজী জাফর উল্যাহফরিদপুর-৪মাহবুবউল আলম হানিফকুষ্টিয়া-৩
নূর-ই-আলম চৌধুরী লিটনমাদারীপুর-১আবদুর রউফকুষ্টিয়া-৪
নৌমন্ত্রী শাজাহান খানমাদারীপুর-২সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুনচুয়াডাঙ্গা-১
ড. আবদুস সোবহান গোলাপমাদারীপুর-৩আলী আজগার টগরচুয়াডাঙ্গা-২
ইকবাল হোসেন অপুশরীয়তপুর-১সাইফুজ্জামান শিখরমাগুরা-১
এ কে এম এনামুল হক শামীমশরীয়তপুর-২বীরেন শিকদারমাগুরা-২
নাহিম রাজ্জাকশরীয়তপুর-৩আবদুল হাইঝিনাইদহ-১
ড. আবদুর রাজ্জাকটাঙ্গাইল-১শেখ আফিলউদ্দিনযশোর-১
আতাউর রহমান খানটাঙ্গাইল-৩কাজী নাবিল আহমেদযশোর-৩
হাসান ইমাম খানটাঙ্গাইল-৪রণজিৎ কুমার রায়যশোর-৪
ছানোয়ার হোসেনটাঙ্গাইল-৫স্বপন ভট্টাচার্যযশোর-৫
আহসানুল ইসলামটাঙ্গাইল-৬ইসমাত আরা সাদেকযশোর-৬
একাব্বর হোসেনটাঙ্গাইল-৭রাজশাহী বিভাগ
সৈয়দ আশরাফুল ইসলামকিশোরগঞ্জ-১নামআসন
মশিউর রহমান হুমায়ুনকিশোরগঞ্জ-৪শামসুল আলম দুদুজয়পুরহাট-১
নূর মোহাম্মদকিশোরগঞ্জ-২আবু সাঈদ আল মাহমুদ স্বপনজয়পুরহাট-২
আফজাল হোসেনকিশোরগঞ্জ-৫আবদুল মান্নানবগুড়া-১
নাজমুল হাসান পাপনকিশোরগঞ্জ-৬হাবিবুর রহমানবগুড়া-৫
নাঈমুর রহমান দুর্জয়মানিকগঞ্জ-১সাধনচন্দ্র মজুমদারনওগাঁ-১
জাহিদ মালেক স্বপনমানিকগঞ্জ-৩শহীদুজ্জামান সরকারনওগাঁ-২
সাগুফতা ইয়াসমিন এমিলিমুন্সীগঞ্জ-২আবদুল মালেক(নওগাঁ-৫
অ্যাডভোকেট মৃণাল কান্তি দাসমুন্সীগঞ্জ-৩ইসরাফিল আলমনওগাঁ-৬
সিলেট বিভাগওমর ফারুক চৌধুরীরাজশাহী-১
নামআসনপ্রকৌশলী এনামুল হকরাজশাহী-৪
মোয়াজ্জেম হোসেন রতনসুনামগঞ্জ-১শাহরিয়ার আলমরাজশাহী-৬
জয়া সেনগুপ্তাসুনামগঞ্জ-২জুনাইদ আহমেদ পলকনাটোর-৩
), এমএ মান্নানসুনামগঞ্জ-৩মো. আব্দুল কুদ্দুসনাটোর-৪
মুহিবুর রহমান মানিকসুনামগঞ্জ-৫মোহাম্মদ নাসিমসিরাজগঞ্জ-১
ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনহবিগঞ্জ-৪অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্নাসিরাজগঞ্জ-২
আবুল মাল আবদুল মুহিতসিলেট-১ডা. আবদুল আজিজসিরাজগঞ্জ-৩
মাহমুদ-উস সামাদ চৌধুরী কয়েসসিলেট-৩তানভীর ইমামসিরাজগঞ্জ-৪
ইমরান আহমদসিলেট-৪আবদুল মমিন মণ্ডলসিরাজগঞ্জ-৫
নুরুল ইসলাম নাহিদসিলেট-৬হাসিবুর রহমান স্বপনসিরাজগঞ্জ-৬
শাহাব উদ্দিনমৌলভীবাজার-১আহমেদ ফিরোজ কবিরপাবনা-২
ড. মোহাম্মদ ফরাসউদ্দিনহবিগঞ্জ-৪মকবুল হোসেনপাবনা-৩
বরিশাল বিভাগশামসুর রহমান শরীফ ডিলুপাবনা-৪
নামআসনগোলাম ফারুক প্রিন্সপাবনা-৫
ধীরেন্দ্রচন্দ্র দেবনাথ শম্ভুবরগুনা-১রংপুর বিভাগ
শওকত হাচানুর রহমান রিমনবরগুনা-২নামআসন
আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইনপটুয়াখালী-৩নূরুল ইসলাম সুজনপঞ্চগড়-২
তোফায়েল আহমেদভোলা-১রমেশচন্দ্র সেনঠাকুরগাঁও-১
নুরুন্নবী চৌধুরী শাওনভোলা-৩দবিরুল ইসলামঠাকুরগাঁও-২
আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবভোলা-৪মনোরঞ্জন শীল গোপালদিনাজপুর-১
আবুল হাসানাত আবদুল্লাহবরিশাল-১খালিদ মাহমুদ চৌধুরীদিনাজপুর-২
তালুকদার মোহাম্মদ ইউনুসবরিশাল-২হুইপ ইকবালুর রহিমদিনাজপুর-৩
পংকজ দেবনাথবরিশাল-৪আবুল হাসান মাহমুদ আলীদিনাজপুর-৪
জেবুন্নেছা আফরোজবরিশাল-৫অ্যাডভোকেট মোস্তাফিজুর রহমান ফিজারদিনাজপুর-৫
আমির হোসেন আমুঝালকাঠি-২আসাদুজ্জামান নূরনীলফামারী-২
ও শ ম রেজাউল করিমপিরোজপুর-১মোতাহার হোসেনলালমনিরহাট-১
ময়মনসিংহ বিভাগনুরুজ্জামান আহমেদলালমনিরহাট-২
নামআসনটিপু মুনশিরংপুর-৪
জুয়েল আরেংময়মনসিংহ-১এইচএন আশিকুর রহমানরংপুর-৫
অ্যাডভোকেট মোসলেম উদ্দিনময়মনসিংহ-৬মাহাবুব আরা বেগম গিনিগাইবান্ধা-২
ফাহমী গোলন্দাজ বাবেলময়মনসিংহ-১০ডা. ইউনুস আলী সরকারগাইবান্ধা-৩
অসীম কুমার উকিলনেত্রকোনা-৩https://bn.durantabarta.com
আতিউর রহমান আতিকশেরপুর-১
মতিয়া চৌধুরীশেরপুর-২
এ কে এম ফজলুল হক চাঁনশেরপুর-৩
মির্জা আজমজামালপুর-৩
রেজাউল করিম হিরাজামালপুর-৫
বাংলাদেশি প্রকৃত নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশ এস এস এফ নিম্ন লিখিত পদে নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করেছেন।

































পদের নামবেতনপদের সংখ্যাগ্রেড
সাঁটলিপিকার ( কম্পিটার অপারেটর মুদ্রাক্ষরিক)১১০০০-২৬৯৫০১৩ তম
গাড়ী চালক৯৭০০-২৩৮৯০১২১৫ তম
মেস ওয়েটার৯০০০-২১৮০০১৭ তম
অফিস সহায়ক৮২৫০-২০০১০২০ তম

 

আবেদনের শেষ তারিখঃ ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮ বিকেল ৫.০০ ঘটিকার মদ্ধে আবেদন করতে হবে।

বয়সঃ ০১ জানুয়ারি ২০১৯ তারিখে ১৮ থেকে ৩০ বছর বয়সের মদ্ধে হতে হবে।

পরিক্ষার ফিঃ ফি বাবদ ১ ও ২ নং পদের জন্য ১০০ টাকা এবন ৩ নং পদের জন্য ৫০ টাকা ১/০৩০১/০০০৩/২০৩১ কোড নাম্বারে মহাপরিচালক স্পেশাল সিকিউরিটি ফোর্স, ঢাকা ের অনুকুলে পাঠাতে হবে।

চাকরির ধরনঃ সরকারি,

বিস্তারিত নিচে দেখুন।



 
কিংবন্তী সংগীতশিল্পী আইববাচ্চু আর বেচে নেই৷ আজ সকালে তিনি মারা গেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়াইন্না ইলাইহি রাজিউন,

আজ (১৮ অক্টোবর) সকাল ১০টায় রাজধানীর স্কয়ার হসপিটালে তিনি শেষ মৃত্যুকে আলিঙ্গন করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৫৬ বছর।


তার পারিবারিক সুত্রে জানা যায়, আজ সকালে তাকে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার কারনে স্কয়ার হসপিটালে নিয়ে যাওয়া হয়। সকাল দশটার দিকে কর্তব্যরত চিকিৎসক আয়ুব বাচ্চুকে মৃত ঘোষণা করেন। এর আগেও তিনি কয়েকবার অসুস্থ হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। এছাড়াও আয়ুব বাচ্চু দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন


১৫ অক্টবর বাংলাদেশের অন্যতম শিক্ষা কেন্দ্র জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়য়ে বিভিন্ন শূন্য খাতে জনবল নিয়োগ দিয়েছে প্রতিষ্ঠান টি। জন্মসুত্রে বাংলাদেশি নাগরিক গণ এ নিয়গে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। আগ্রহী প্রার্থীগণকে আগামী ১৪-১১-২০১৮ তারিখ বিকেল ৪ঃ০০ ঘটিকার মধ্যে অনলাইনে আবেদন করতে হবে। আবেদন লিংক এই লিংক এ অনলাইনে আবেদন ফরম পূরণ করে আবেদন সম্পাদন করতে হবে। ১৬-১০-২০১৮ তারিখ হইতে উক্ত লিংক এ আবেদন করা যাবে। এক নং পদের জন্য ১০০০ টাকা এবং ২ নং পদের জন্য ১৫০০ টাকা সোনালী সেবার মাধ্যমে পাঠাতে হবে।

মোট পদের সংখাঃ  পরিচালক পদে ১ জন এবং সহকারী রেজিস্টার পদে ১৬ জন ।

বেতন গ্রেডঃ ১ নং পদের জন্য (গ্রেড ৩ অর্থাৎ ৫৬৫০০-৭৪৪০০ টাকা) এবং ২ নং পদের জন্য ( গ্রেড ৭ অর্থাৎ ২৯০০০- ৬৩৪১০ টাকা)

এখানে উল্লেখ করা হয় যে পরিচালক পদের জন্য সর্ব নিম্ন বয়স ৪৫ বছর হতে হবে। এবং সহকারী রেজিস্টার পদের জন্য কম পক্ষে ৩৫-৪৫ বছর বয়স হতে হবে।

বিস্তারিত নিচে দেয়া হলো।

========================================================

কালের স্রোতে হারিয়ে যাওয়ার পথে বাংলাদেশের অন্যতম ঐতিহ্য লোকসঙ্গীত। বাংলাদেশের এই ঐতিহ্য ধরে রাখতে অসামান্য অবদান রেখে যাচ্ছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পৃষ্ঠপোষকতায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের একটি অসাধারণ উদ্যোগ এটি। গত ১২ অক্টোবর শুক্রবার কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের বিপ্লবী সাধারণ সম্পাদক জনাব গোলাম রাব্বানী তার নিজ ফেইসবুক টাইমলাইনে ও পেইজে এ বিষয়ে মন্তব্য করেন।Image may contain: 2 people, people smiling, people standing সেই সাথে অনুষ্ঠানকে সাফল্য মন্ডিত করে তুলতে গোলাম রাব্বানী নিজেই বাউল পোশাকে অনুষ্ঠানে অংশ নেয়। এ সময়ে দেখা যায় তাকে বাউল পোশাক পড়ে কেন্দ্রিয় ছাত্রলীগের সংগ্রামী সভাপতি জনাব রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন কে সাথে নিয়ে লোকসঙ্গীত উৎসবে মেতে উঠেন। .. চলো যাই শেকড়ের সন্ধানে....

সুত্রঃ ফেইসবুক

শুভ শুভ শুভ দিন, শেখ হাসিনার জন্মদিন শ্লোগানে মুখরিত সরকারি তিতুমীর কলেজ প্রাঙ্গণ।।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার ৭২ তম জন্মদিন উপলক্ষে সভাপতি রিপন মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হোক জুয়েল মোড়লের নেতৃত্বে সরকারি তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগ বিভিন্ন কার্যক্রমের মধ্য দিয়ে দিনটি উদযাপন করেন। গত কাল ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৮ বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার বিচক্ষণ নেতৃত্বের জন্য ইন্টারন্যাশনাল এচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড এবং  স্পেশাল রিকগনিশন ফর আউটস্টান্ডিং লিডারশীপ সম্মাননা ও ৭২ তম জন্মদিন উপলক্ষে সরকারি তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগ কর্তৃক আয়োজন করা হয় এক বিশাল আনন্দ মিছিলের। আজ জুমার নামাজ শেষে সরকারি তিতুমীর কলেজ কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে তার জন্য দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

Image may contain: 7 people, including Jewel Morol, crowd

বিভিন্ন পদে মোট ১৯০৩ জনবল নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করছে বাংলাদেশ সিভিল সার্ভিস (বিসিএস)। এই পদ গুলোর জন্য আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ থেকে অনলাইনে আবেদন করা যাবে। আবেদনের শেষ তারিখ ১৫ নভেম্বর ২০১৮ পর্যন্ত

আবেদনের যোগ্যতাঃ প্রতিটি পদে আবেদনের জন্য আবেদনের যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা এবং বয়সসীমা আলাদা আলাদা। যোগ্যতা, অভিজ্ঞতা এবং বয়সসীমার শর্তাবলি নিচের বিজ্ঞপ্তিতে দেওয়া হলো।


বিভিন্ন খাতে মোট পদ সংখ্যাঃ ১৯০৩ জন

আবেদন শুরুঃ ৩০ সেপ্টেম্বর ২০১৮

আবেদনের শেষ তারিখঃ ১৫ নভেম্বর ২০১৮





আবেদনের বয়স সীমাঃ প্রার্থীর বয়স ১৮ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে থাকতে হবে। মুক্তিযোদ্ধা ও মুক্তিযোদ্ধার সন্তান্দের ক্ষেত্রে বয়স ৩২ বছর পর্যন্ত গ্রহণযোগ্য।

আবেদনের নিয়মঃ আগ্রহী প্রার্থীরা পিএসসি এর ওয়েবসাইট http://bpsc.teletalk.com.bd  থেকে আবেদন করতে পারবে।

বিসিএস এর বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক দিক নির্দেশনা পেতে ফেইসবুক পেইজ এ লাইক দিন Facebook Page


দুরন্ত বার্তা, ঢাকা





জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত যে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। সে সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদন ১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ তারিখ বিকে ৪ ঘটিকা থেকে শুরু হয়ে ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৮ রাত ১২ ঘটিকা পর্যন্ত চলবে। যে সকল প্রার্থী ভর্তি হতে ইচ্ছুক তারা ওয়েব সাইট থেকে আবেদন ফর্ম পূরণ করে আবেদন ফর্ম টি প্রিন্ট করে আবেদনের ফি বাবদ ২৫০ (দুইশত পঞ্চাশ) টাকা ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ এর মধ্যে নির্দিষ্ট কলেজে জমা দিতে হবে।

আবেদন করতে এখানে ক্লিক করুণ 

এই আবেদনে যে সকল প্রার্থী নির্বাচিত হবে তাদের ক্লাস আগামী ১১ অক্টোবর ২০১৮ তারিখে শুরু হবে।

আবেদনের সাধারণ যোগ্যতা এবং বিস্তারিত নিচে ছবিতে উল্লেখ করা হলো।



জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় এর অধিনে যারা ২০১৬-১৭ শিক্ষাবর্ষের প্রিলিমিনারি থেকে মাস্টার্স হবেন তাদের মেধা তালিকা প্রকাশ করতে যাচ্ছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়। আগামী ১২ই জুলাই প্রিলিমিনারি থেকে মাস্টার্স ভর্তির মেধা তালিকা প্রকাশ করা হবে। ঐ দিনে মোবাইলের মাধ্যমে বা ওয়েব সাইট এর মাধ্যমে মেধা তালিকা জানা যাবে।

এস এম এস এর মাধ্যমে ফল জানতে প্রথমে যে কোনো মোবাইলের ম্যাসেজ অপশনে গিয়ে nu লিখে একটি স্পেস দিন এর পরে লিখুন atmp এবং এর পরে আপনার রোল নং টি লিখে এস এম এস টি পাঠিয়ে দিন ১৬২২২ নাম্বারে।

বিঃদ্রঃ এস এম এস এর মাধ্যমে ঐ দিন বিকেল ৪ ঘটিকা থেকে ফলাফল জানা যাবে। এ ছাড়া ওয়েব সাইট এর মাধ্যমে রাত ৯ ঘটিকার পরে জানা যাবে। ওয়েব সাইট থেকে ফল জানতে ভিজিট করুন www.nu.ac.bd/admissions

বিস্তারিত নিজে দেখুন।

অনার্স ৪র্থ বর্ষ ২০১৭ বিশেষ পরীক্ষার ফরম পূরণ সংক্রান্ত বিজ্ঞপ্তি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় নোটিশ বোর্ডে প্রকাশ করা হয়েছে। উক্ত নোটিশে বলা হয়েছে আগামী ১০/০৭/২০১৮ তারিখ হইতে ০৮/০৮/২০১৮ তারিখ পর্যন্ত সকল ছাত্রছাত্রী অনলাইনের মাধ্যমে ফরম পূরণের জন্য আবেদন করতে পারবেন। এ জন্য এই সাইটে ঢুকে আবেদন ফরম ডাউনলোড করতে হবে nubd.info

উক্ত পরীক্ষায় ১০-১১, ১১-১২, ১২-১৩ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থীরা আবেদন করতে পারবেন। অনলাইনে আবেদনের শেষ তারিখ ০৮/০৮/২০১৮ এবং কলেজ কর্তৃক নিশ্চয়নের শেষ তারিখ ১১/০৮/২০১৮ তারিখ, এবং যাবতীয় কার্যাবলী ১৬/০৮/২০১৮ তারিখের মধ্যে শেষ করা হবে।

নিচে বিস্তারিত দেখানো হলো

অনার্স ৩য় বর্ষের বিশেষ পরীক্ষা আগামী ২৩ জুলাই ২০১৮ সোমবার জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্তৃক আয়োজন করা হবে। উক্ত পরিক্ষার সময়সূচী নিচে দেওয়া হলো,

উল্লেখ্য যে উক্ত পরীক্ষাগুলো প্রতিদিন বেলা ১ঃ৩০ মিনিট হইতে আরম্ভ হইবে।

আগামী ২৩/০৭/২০১৮ তারিখ হইতে ১১/০৮/২০১৮ তারিখ পর্যন্ত এই পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। পরীক্ষার সময় সীমা প্রশ্নপত্রে উল্লেখ করা থাকবে। পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক কর্তৃপক্ষ যে কোনো প্রয়োজনে পরীক্ষার সময়সূচী পরিবর্তন করতে পারেন। উক্ত সংবাদটি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়য় নোটিস বিভাগ ০৮ জুলাই ২০১৮ তারিখে প্রকাশ করেন। নিচে বিস্তারিত দেয়া হলো

জুন পরিবেশ দিবসের কার্যক্রম হিসেবে আজ ২৮ জুন ২০১৮ সরকারি তিতুমীর কলেজ কর্তৃক বৃক্ষ রোপণ কর্মসূচী আয়োজোন করা হয়। ক্যাম্পাসে নির্মল পরিবেশ অব্যাহত রাখতে এ কর্মসূচী আয়োজন করা হয়।

এ সময়ে "গাছ লাগান,পরিবেশ বাঁচান" শ্লোগানে মুখরিত সরকারি তিতুমীর কলেজ প্রাঙ্গন। কলেজে বিভিন্ন ধরনের ফলজ ও ঔষধি গাছ লাগানো হয়। গাছ লাগানো কর্মসূচীতে সার্বিক তত্ত্বাবধায়ন করেন কলেজের ছাত্রলীগ সভাপতি রিপন মিয়া এবং সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হক জুয়েল মোড়োল।  এ সময়ে উপস্থিত ছিলেন মাননীয় অধ্যক্ষ প্রফেসর আশরাফ হোসেন স্যার সহ বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক ও সাধারণ ছাত্র-ছাত্রী।

যে এস সি পরীক্ষায় মানবন্টন পরিবর্তন করা হয়েছে। ৩১/০৫/২০১৮ তারিখে এ ব্যাপারে এক আলোচনা বৈঠক আয়োজন করা হয়। এতে যে এস সি পরিক্ষার ব্যাপারে বিভিন্ন বিষয়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ ও আলোচনা করা হয়। তবে বছরের মাঝামাঝি সময়ে পরিক্ষার মানবন্টন ছাত্রছাত্রীদের মাঝে কতোটা গ্রহণযোগ্য হবে সেটি নিয়ে ভাবছেন অবিভাবকেরা। শিক্ষার্থীরা এ ব্যাপারে বিরুপ প্রতিক্রিয়া দেখায়। রাজধানীর সবুজ বিদ্যাপীঠ স্কুলের অষ্টম শ্রেণীর ছাত্রী মীম আক্তার রিংকি বলে, এমন সিদ্ধান্ত আমাদের জন্য খুব ই খারাপ একটি সিদ্ধান্ত। যদি বছরের শুরুতে এমন পরিবর্তন করা হতো তবে আমরা সে ভাবে প্রস্তুতি নিতে পারতাম। কিন্তু হঠাত করে এমন পরিবর্তনে ভয়ে আছি। এখন কি ভাবে প্রশ্ন করা হবে সে ব্যাপারে একটি ভয় কাজ করে। যার কারনে আমাদের সকলের পড়া লেখায় কিছুটা সমস্যা হচ্ছে।

বৈঠকে এনসিসিসি সভার ৪.২ নং সিদ্ধান্ত অনুযায়ী এ পরিবর্তন উপস্থাপন করা হলো।

অনার্স ১ম বর্ষের ফরম পূরণ প্রসঙ্গে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের নোটিশ বোর্ডে সময় বৃদ্ধি সংক্রান্ত একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়েছে। যেখানে ফরম পুরনের সময় আগামী ১১/০৭/২০১৮ তারিখ পর্যন্ত বৃদ্ধি করা হয়েছে। ডাটাএন্ট্রি এর সময় বৃদ্ধি করে ১২/০৭/২০১৮ তারিখ করা হয়েছে। সোনালী সেবার মাধ্যমে টাকা পাঠানোর শেষ তারিখ হিসেবে ১৫/০৭/২০১৮ তারিখ এবং সকল কাগজপত্র জমা দানের শেষ তারিখ ১৮/০৭/২০১৮ নির্ধারণ করা হয়েছে।

সকলের অবগতির জন্য জানানো যাচ্ছে যে, ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের (নিয়মিত), ২০১৬-১৭, ২০১৫-১৬ ও ২০১৪-১৫ শিক্ষাবর্ষের (অনিয়মিত ও গ্রেড উন্নয়ন) এবং ২০১৩-১৪ শিক্ষাবর্ষের Promoted শিক্ষার্থীগণ F গ্রেড প্রাপ্ত কোর্সে ২০১৮ সালের অনার্স ১ম বর্ষ পরীক্ষায় আবেদনের ফরমপূরণ, ফরম এন্ট্রি নিশ্চয়ন, ফি ও অন্যান্য কাগজপত্র জমাদানের তারিখ নিম্নলিখিত ছক অনুযায়ী বর্ধিত করা হলো



নোটিশ টি ডাউনলোড করতে এখানে ক্লিক করুণ

সূত্র: জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়য়
জ ২৬ শে জুন,আন্তর্জাতিক মাদক বিরোধী দিবস উপলক্ষ্যে সরকারি তিতুমীর কলেজের ছাত্রলীগ সভাপতি রিপন মিয়া ও সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল হক জুয়েল মোড়ল এর নেতৃত্বে এক বিশাল মাদক বিরধি র‍্যালী আয়োজন করেন। এতে অংশগ্রহণ করেন বিভিন্ন বিভাগের বিভাগীয় শিক্ষক-শিক্ষিকা, ছাত্রছাত্রী ও ছাত্রলীগ নেতা-কর্মী গণ। র‍্যালীটি সরকারি তিতুমীর কলেজ থেকে শুরু করে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় হয়ে পুনরায় কলেজে প্রবেশ করে। র‍্যালিতে সার্বিক সহযোগিতায় ছাত্রলীগ সক্রিয় ছিলো।



 

উল্লেখ্য যে শেখ হাসিনার নির্দেশে দেশের মাদক বিরোধী অভিযানের স্বপক্ষে রিপন মিয়া ও মাহমুদুল হক জুয়েল মোড়ল দীর্ঘদিন যাবত মাদক বিরোধী বিভিন্ন কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছে। তাদের নেতৃত্বে সরকারি তিতুমীর কলেজ এখন মাদক ও সন্ত্রাস মুক্ত ক্যাম্পাস হিসেবে এগিয়ে যাচ্ছে। মুজিব কন্যা শেখ হাসিনার হাতকে শক্তিশালী করার লক্ষে তারা তাদের এ কার্যক্রম অব্যহত রাখবে বলে জানান।

দুরন্ত বার্তা - ঢাকা

সুইটি আক্তার ময়না, পেশায় একজন সাংবাদিক। দৈনিক মাতৃছায়া পত্রিকার রিপোর্টার।

গত 25 আগস্ট, 2017 তারিখ শরিয়ত মতে 10 লক্ষ টাকা ধার্যে সাংবাদিক, মোঃ আকাশ মুন্সী ( সোহেল) এর সঙ্গে , সাংবাদিক সুইটি আক্তার এর বিবাহ হয়" উক্ত বিবাহ ছেলের পক্ষে স্বাক্ষর করে , ছেলের চাচা , ইসরাফিল মুন্ত্রী ও রোমান হাওলাদার , রাজৈর টেকেরহাট " এবং মেয়ে পক্ষের স্বাক্ষর করে মোঃ মোগুল হোসেন বেপারী ও জোসনা আরক্ত, চরমুগরীয়া ।




বিবাহের আগে দুই জন চেনা জানা হয়" পরিচয়ের সূত্র ধরেই তাদের সেই পরিচয় বিয়ে পর্যন্ত গড়ায়। কিন্তু এ বিয়ে সম্পন্ন করার আগে সাংবাদিক আকাশ মুন্সি (সোহেল) জানায় সে 2014 সালে মাদারীপুর কোট নোটারি করে রাজৈর টেকেরহাট নুরুল ইসলাম নামের এক ভ্যান চালকের মেয়ে রেশমি আক্তার কে বিবাহ করে। উল্লেখ্য যে এটি সুইটি আক্তার এর দ্বিতীয় বিয়ে। দুইজনে দুইজনের ব্যাপারে অবগত থেকেই এই বিয়ে সম্পন্ন হয়। গত 25 আগস্ট 2017 তারি রোজ " শুক্রবার বিবাহ তারিখ ধার্য করে বিবাহ হয়' বিবাহের দুই মাস পরে মোটরসাইকেল কিনতে টাকা চায় তার স্বামী। কিন্তু সুইটি তার স্বামীকে টাকা দিতে অপরাগ হলে বেশ কয়েক মাস পরে, হটাৎ তার স্বামী উধাও হয়ে যায়। এক থেকে দেড় মাস হলেও তার কোনো খোজ খবর পাওয়া যায় নি। হটাৎ ঢাকা থেকে মোবাইলের মাধ্যমে জানায় সে আবার বিবাহ করেছে। এরপর মাদারীপুর কোর্টে সুইটি আক্তার মামলা দায়ের করেন। বর্তমানে মামলা চলমান ও দু মাস জেল খেটে জামিনে বের হয়ে আসে তার স্বামী। বর্তমানে তাকে হেও করার জন্য একটি অনলাইনে মিথ্যা ও ভিত্তিহীন সংবাদ বানিয়ে পোষ্ট্ করছে। যার ফলে সুইটি আক্তার এখন সামাজিক ভাবে হেও হচ্ছেন। সেই সাথে তার মানসিক অবস্থা ও সামাজিক নিরাপত্তায় ব্যাপক সমস্যা দেখা দেয়। তিনি এ ব্যাপারে সকলের সহযোগিতা কামনা করেন।
ম্প্রতি র‍্যাবের হাতে কাউন্সিলর একরামুল নিহত হওয়া নিয়ে দেশ ব্যাপী এক চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে। এমন অবস্থায় সে প্রকৃত পক্ষে দোষী ছিলো কি না সে সম্পর্কে স্পট কোনো বক্তব্য এখনো দেয়া হয়নি। যদি সে দোষী হয়ে থাকে তাহলে তার কর্মকাণ্ডের বিস্তারিত কেন এখনো জানানো হচ্ছে না সে ব্যাপারে অনেকেই বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগে লেখা লেখি করেছেন। এ ছাড়া তার পরিবারে থেকে পাওয়া অডিও ক্লিপ নিয়ে শুরু হয়েছে এক বিশাল ধুম্রজালের যেখানে তার মেয়েদের করুণ কণ্ঠে ব্যাথিত সমগ্র বাংলাদেশ। মাননীয় পরিবহণ ও যোগাযোগ মন্ত্রী ওবাইদুল কাদের বলেন যদি সে দোষী না হয়ে থাকে তবে তার নাম যারা লিস্টে দিয়েছে তাদের ছেড়ে দেওয়া হবে না। তাহলে কি দেশের আইন শৃঙ্খলা কারো দেয়া লিস্টের ভিত্তিতে চলে? একটি জীবন সামান্য কিছু নয়। সেখানে না জেনে এমন অসম্পূর্ণ তথ্যের ভিত্তিতে একটি জীবন কি করে শেষ করে দিতে পারে?



এ বিষয়ে নানা প্রশ্নের জবাব এখন সাধারণ জনগন খুজে বেড়াচ্ছে। প্রতিটি অপরাধির ই একটি পরিবার থাকতে পারে। সে যতই অপরাধি হোক পরিবারের কাছে তার মৃত্যু কাম্য না এটা নতুন কিছু না। তবে কিছু তথ্যের ভিত্তিতে একরামুলের মাদকের সাথে সম্পৃক্ততার প্রমাণ মেলে। এ বিষয়ে ইন্ডিপেন্ডেন্ট চ্যানেলের ২০১২ সালের করা তালাশ প্রোগ্রামের এক ভিডিওতে দেখা যায় একরামুলের নাম মাদক ব্যাবসায়ির লিস্টে রয়েছে। সেখানে উল্লেখ করা হয়েছে একরামুল টেকনাফ উপজেলার যুবলীগ সভাপতি, টেকনাফে তার ২টি বাড়ি, চট্টগ্রামে ১ টি বাড়ি, ঢাকায় ১টি ফ্লাট রয়েছে। এছাড়া তার ২টি ব্যাক্তিগত গাড়িও রয়েছে। কিন্তু সম্প্রতি ঘটনায় উল্লেখ করা হয় তার বাড়ি ভাড়া ৩ মাসের বকেয়া রয়েছে। এখানে কেউ কেউ প্রশ্ন তুলেছেন যে তার বাড়ি ভাড়া বকেয়া রয়েছে নাকি সে প্রভাব খাটিয়ে বাড়িভাড়া না দিয়ে সেখানে বসবাস করে যাচ্ছে? ঘটনা এখান সকলের মধ্যে একটি আতংকজনক অবস্থা সৃষ্টি করেছে।

কিন্তু এ ব্যাপারে তার স্ত্রী জানান টেকনাফ সদর ইউনিয়নে নাজিরপাড়া নামে একটি গ্রামের মোজাহার মিয়া নামে এক ব্যক্তির তিন ছেলে চিহ্নিত ইয়াবা ব্যবসায়ী। ঐ এলাকায় একরামুল নামে আরও এক ব্যক্তি রয়েছে, যার বিরুদ্ধে ইয়াবা ব্যবসার অভিযোগ রয়েছে এবং তার নাম স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও অন্যান্য তালিকায় রয়েছে। ''ভুল তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব তার স্বামীকে হত্যা করেছে বলে দাবী জানান তার স্ত্রী।''

তালাশ টিমের ভিডিওঃ

মানবী বন্দ্যোপাধ্যায়


ভারতের পশ্চিমবঙ্গের কৃষ্ণনগর গভর্নমেন্ট কলেজের প্রিন্সিপালের দায়িত্ব নিতে যাচ্ছেন প্রথম একজন হিজরা বা তৃতীয় লিঙ্গের কোনও ব্যক্তি। যিনি একটি সরকারি কলেজের প্রিন্সিপালের দায়িত্ব নিতে চলেছেন। এই প্রথম একজন হিজরা কোন নামীদামী শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের এরকম পদে নিয়োগ পেতে যাচ্ছেন। বর্তমানে হিজড়া সম্প্রদায় শিক্ষার দিক দিয়ে কতটা এগিয়েছে এটি তার একটি অন্যতম উদাহারণ। চলার পথের শত বাধা পেরিয়ে এক জন হিজড়া আজ একটি সরকারি কলেজের প্রিন্সিপ্যাল। হিজড়া সম্প্রদায়কে সঠিক বিকাশের সুযোগ দানের মাধ্যমে তাদেরকে দেশের সম্পদে পরিণত করা সম্ভব।






সফিকুল ইসলাম রাজীব

দুরন্ত বার্তা - ঢাকা



লক্ষ্মীপুরে কমলনগর উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারন সাম্পাদাক রাকিব কে আপত্তিকর অবস্থায় আটক করে গণধোলাই দিয়ে পুলিশে সোর্পদ করেছে স্থানীয় এলাকাবাসী। সেই সঙ্গে ওই ব্যবসায়ীর স্ত্রীকে পুলিশে দেয়া হয়। শনিবার রাতে থানার চরউভূতির চকবাজার এলাকায় আবদুল জাহেরের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় এলাকাবাসী জানায়,অনেক দিন যাবত চরউভূতির চকবাজার এলাকার ব্যবসায়ী আবদুল জাহেরের স্ত্রীর সাথে রাকিব হোসেন বিপ্লবের অবৈধ সর্ম্পক ছিলো। কিন্তু তার ভয়ে কেউ মুখ খুলে এ বিষয়টি বলতে সাহস পেতো না। ঘটনার দিন সকলে তারাবির নামাজ আদায় করতে গেলে সেই সুযোগে রাকিব ঐ ব্যবসায়ীর স্ত্রীর সাথে অপকর্মে লিপ্ত হয় এই ঘটনা এলাকাবাসী টের পেয়ে নামাযে যাওয়া সকল মুসল্লি একত্রীত হয়ে রাকিব কে ঘেরাও করে। আর তখন তাকে অপকর্মে লিপ্ত অবস্থায় আটক করে। পড়ে তারা তাকে উত্তম মাধ্যম দিয়ে পুলিশে খবর দেয়।

রাকিব হোসেন যখন উপজেলা সাধারণ সম্পাদক ছিলেন, তখন তার বাসায় তোরাবগঞ্জ বাজারে টেইলার্স আব্দুল জাহের এবং তার স্ত্রী ভাড়া থাকতো। এই সূত্র ধরেই রাকিবের সাথে তার প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। তখন এ ঘটনা কিছু জানাজানি হলে সেখান থেকে বাসা ছেড়ে টেইলার্স  আব্দুল জাহের স্ত্রীকে নিয়ে অন্যত্র চলে আসেন। কিন্তু সেখানেও রাকিব মাঝে মাঝে আসা যাওয়া করতো।

এলাকাবাসী কেউ এর প্রতিবাদ করলে হুমকি ধামকি এমন কি অপমানিত হতে হতো তাই তার ভয়ে কেউ কখনো মুখ খুলে কিছু বলতে সাহস পেতো না।





এ ঘটনার সুষ্ঠ তদন্ত করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

গত ৩মে বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে এসএসসি পরীক্ষায় প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ যাচাই কমিটির প্রতিবেদন উপস্থাপনের সময় সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে  শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ ইঙ্গিত দেন যে, আগামী ২০১৯ সালের এসএসসি পরীক্ষায় নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্ন থাকছে না। তবে সংক্ষিপ্ত প্রশ্নের উত্তর লেখার ব্যবস্থা থাকবে।


-----------------------------------------------------------------------------------------------------

শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের  সচিব মো. সোহরাব হোসাইন বলেন "শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ বলেছেন বিষয়টি এ বিষয়ে একটি পরিবর্তন আসতে পারে। কিন্তু এখনি আমরা সুযোগটা দিচ্ছি না। বর্তমানে এমসিকিউ এখন —এ, বি, সি, ডি, ফরমেটে দেওয়া থাকে, হয়তো সেরকম না করে সেটার একটা পরিবর্তন আসতে পারে। এটা টোটালি বন্ধ করে সিকিউতে যেতে হবে।


তিনি আরো বলেন শিক্ষার্থীরা এটা কতোটা গ্রহণ করতে পারবে সে বিষয়েও বিবেচনা করা হচ্ছে। এ ব্যাপারে হুট করে সিদ্ধান্ত দেওয়া সম্ভব না, আমারা পরিখামূলক ভাবে এটি প্রোয়োগ করে দেখা হবে।


এর আগে মো. সোহরাব হোসাইন গণমাধ্যমে জানিয়েছিলেন, উত্তর পত্রে শুধু টিক চিহ্ন নয়। দুই-এক লাইন লিখলেও লিখতে হবে।


বর্তমানে ৫ম শ্রেণি ও ৮ম শ্রেণির প্রশ্নের ক্ষেত্রে এমন পরিবর্তন দেখা গিয়েছে। সেখানে এমসিকিউ এর পরিবর্তে ৩০ নম্বরের সংক্ষিপ্ত প্রশ্ন লেখার ব্যাবস্থা করা হয়েছে।


 

পনি তিনটি উপায়ে এসএসসি এর রেজাল্ট দেখতে পারেন।

 

1. অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশানগুলি থেকে

2. ওয়েবসাইট থেকে

3. মোবাইল এসএমএস সিস্টেমের মাধ্যমে

অ্যান্ড্রয়েড অ্যাপ্লিকেশন থেকে এসএসসি ফলাফল:

আপনার Android ফোন থেকে এসএসসি ফলাফল পরীক্ষা করার জন্য আপনাকে এই অ্যাপটি ডাউনলোড করতে হবে।

এ্যাপটি খুলুন তারপর আপনার এসএসসি রোল নম্বর এবং রেজিস্ট্রেশন দিন।

তারপর একটি ছোটো যোগ বিয়োগ ধরণের সিকিউরিটি সমাধান করতে হবে

এবং সাবমিট বাটনে ক্লিক করতে হবে ।

মোবাইল থেকে এসএসসি ফলাফল:

আপনার মোবাইল মেসেজ অপশনে যান

SSC <স্পেস> বোর্ডের প্রথম তিনটি অক্ষর যেটি আপনি পরীক্ষা করছেন <স্পেস> আপনার রোল নম্বর <স্পেস> সেই বছরের যে পরীক্ষাটি গ্রহণ করছে

তারপর এটি 16222 পাঠান।

প্রতি এসএমএস প্রতি এসএমএস চার্জ করা হবে 2.30 প্রতি এসএমএস।

Example: SSC 425065 2012 আর পাঠিয়ে দিন 16222 নম্বরে

ওয়েবসাইট থেকে এসএসসি ফলাফল:

আপনি এসএসসি ওয়েবসাইটের ফলাফলও দেখতে পারেন।

প্রথমে এখানে ক্লিক করুন http://www.educationboardresults.gov.bd/

তার পরে এসএসসি নির্বাচন করেন

ফল প্রকাশের বছর নির্বাচন করুন।

পরীক্ষা বোর্ড থেকে বোর্ড নির্বাচন করুন।

আপনার এসএসসি রোল নম্বর পূরণ করুন

রেজিস্ট্রেশন নম্বরটি পূরণ করুন

গাণিতিক সমস্যাটির সমাধান করুন

এখন Submit বোতামটি ক্লিক করুন। ফলাফল আপনার সামনে প্রদর্শিত হবে।

সকলের জন্য শুভেচ্ছা


ফেইসবুক প্রোফাইল সমস্যা
গত কয়েকদিনে অনেকের প্রফালে সমস্যা হচ্ছে৷ অনেকে বিষয়টি নিয়ে চিন্তিত কেউ কেউ এ সমস্যাকে কেন্দ্র করে ছড়াচ্ছে নানা গুজব৷ তবে প্রফাইলের সমস্যা আসলে কি???
অনেকেক প্রোফাইল লোড হয় না৷ অনেকের প্রোফাইল পিক সো করে না৷ অনেকে প্রোফাইলে ঢুকতে পারছে না৷
সর্বপরি কম বেশি অনেকেই প্রফাইল সমস্যার সম্মুখিন হয়েছে৷
এর সম্পর্কে যতটুক পেরেছি কারণ অনুসন্ধান করেছি৷


১৷ ফেইসবুক প্রোফাইল গার্ড অপশনটি এ্যাড করার কারনে প্রোফাইলে ছবি ডাউনলোড এমনকি স্ক্রিন শর্ট পর্যন্ত দেয়া যায় না৷ হয়তো এই গার্ড সিস্টেমের কিছু গড়মিলের কারনে এ সমস্যা দেখা দিচ্ছে৷
২৷ প্রোফাইলে ট্যাগ রিভিউ অন থাকলে রিভিউ এর পরিমাণ অতিরিক্ত জমার কারণে হয়তো প্রোফাইল লোড নিতে সময় লাগছে যা সার্ভার টাইম আউট হয়ে ইরোর দেখাচ্ছে৷
৩৷ হয়তো ফেইসবুক কর্তৃরক্ষ ডেভলপের কাজে বিশেষ কোনো পরিবর্তণ আনা হচ্ছে৷
৪৷ হয়তো এসএসএল সিকিউরিটি জনিত কোনো সমস্যা হচ্ছে৷
৫৷ বাংলাদেশের সাবমেরিন নেটোয়ার্কের ত্রুটির কারনেও এ সমস্যা হতে পারে৷
৬৷ ফেইসবুক কর্তৃপক্ষ হ্যাকারদের কবলে ডিফেন্স জনিত কারণেও হতে পারে৷


সর্বপরি এটি একটি সাময়িক ত্রুটি কাজেই চিন্তার কিছু নেই৷ গুরুত্বপূর্ন বিষয় গুলো ব্যাকাপ রাখাই উত্তম৷
মাদারীপুর জেলার বিভিন্ন গ্রামে বৈশাখমাসের শুরু থেকে সারা মাস জুড়ে মেলা বসে। মাদারীপুর এর স্থানীয় ভাষায় একে গলুইয়া বলা হয়। লোকমুখে শোনা যায় এই গলুইয়া ১৬০০ শতাব্দীর আগে থেকেই হয়ে আসছে। ঐতিহ্যবাহী এই গলুইয়া একমাসের বেশি স্থায়ী হয়। মাদারীপুর জেলার গ্রামগঞ্জে বৈশাখ মাস এলেই গলুইয়ার (মেলা) আয়োজন শুরু হয়ে যায়। বিভিন্ন এলাকা থেকে মানুষ উপভোগ করতে আসে গলুইয়ায়। নানা আয়োজন আর বিভিন্ন খেলাধুলায় ভরপুর এই মেলা। মেলাতে বাচ্চাদের বিভিন্নপ্রকার খেলনা, গৃহসজ্জার সামগ্রী, গৃহস্থালি সামগ্রী, কাপড়চোপড় সহ বাহারি খাবারের পশরা সাজিয়ে রাখে মেলাতে আসা দোকানিরা। ষোড়শ শতাব্দী থেকে এই গলুইয়ার ঐতিহ্য এখনও আছে। তবে মেলায় কিছু দুষ্ট প্রকৃতির লোকের জন্য অনেক সামাজিক মানুষ মেলা বিমুখী হয়ে ওঠে। এখানকার স্থানীয় কিছু বাজে মানুষ বিভিন্নপ্রকার জুয়া নিয়ে আসে। প্রশাসন একটু সঠিকভাবে নজরদারী করলে মাদারীপুর এই ঐতিহ্যবাহী গলুইয়া তার হারানো গৌরব ফিরে পেত। স্থানীয় মুরুব্বীদের থেকে জানা যায় এই মেলার ঐতিহ্য সেই রাজাবাদশাদের খাজানা তোলা থেকে শুরু হয়। এখনও বিভিন্ন দোকানি এই মেলার সময় হালখাতা করে তার বকেয়া আদায়ের জন্য।

আমরা অনুরোধ করছি প্রশাসন যেন এই ঐতিহ্যবাহী মেলায় যেন কোন জুয়ার আসর বা অপ্রতিকর ঘটনা যেন না ঘটে সে বিষয়ে যথেষ্ট নজর দেন।

টি এম কবির হোসেন





দুরন্ত বার্তা।
হে তরুণ !
অনুধাবন কর। উল্লসিত যৌবনের দুর্বার
আবেগ, তেজদ্দীপ্ত তারুণ্যের উজ্জীবিত ভাবনা, উচ্ছল সমুন্নত বুদ্ধিমত্তা- তুমি কোন পথে ব্যয় করে চলেছো। বিগত অতীতে, বর্তমানের কাল প্রবাহে
তুমি কি তোমার সৃষ্টিকর্তাকে চিনেছো?
অথবা সম্ভাবনাময় ভবিষ্যতে তুমি কি তোমার স্রষ্টাকে
যথার্থ অনুধাবন করতে সক্ষম? কখনও ভেবে দেখেছো কি? তোমার এ জীবনটা কার দেওয়া?

পিঞ্জরাবদ্ধ তোমার আত্মাটি কার হুকুমে দুনিয়াতে এসেছে,
আবার কার হুকুমে দুনিয়া থেকে বিদায় হবে ?

যাবতীয় সম্ভাব্য শক্তি প্রয়োগেও পারবে কি সেই ফিরে যাওয়া ঠ্যাকাতে?
কখনও কি ভেবে দেখেছো মাতৃগর্ভের সামান্য পানি বিন্দু থেকে কে তোমাকে পূর্ণাঙ্গ মানব শিশুতে রূপায়িত করল?
কে তোমার খাদ্যের ব্যবস্থা করল?
কে তোমার বৃদ্ধি ও বিকাশ
ঘটালো অন্ধকার মাতৃ জঠরে? কেই বা তোমাকে দিনে দিনে বিকশিত করে শৈশব, কৈশর অতিক্রম করে যৌবনের উচ্ছসিত আবেগময় পটভূমিতে এনে দাঁড় করালো ?

তিনিই তো আল্লাহ- যিনি এক ও
অদ্বিতীয়। যার কোন শরীক নেই। তিনিই তো মহা পরাক্রমশালী স্রষ্টা যিনি তোমার জন্ম-মৃত্যুর মালিক।

যিনি তোমার ও সমগ্র জীবকূলের একক প্রতিপালক। মহীয়ান-গরীয়ান- তিনিই সেই
রাজাধিরাজ, যার দিকেই তোমার মৃত্যু পরবর্তী
প্রত্যাবর্তন।

বিচার দিবসের একচ্ছত্র ক্ষমতার
অধিপতি যাবতীয় সৃষ্টি জগতের পরাক্রমশালী নিদ্রা-ক্লান্তি বিহীন স্রষ্টা আল্লাহরই হুকুমে তুমি দুনিয়াতে এসেছো, আবার তাঁরই হুকুমে তুমি দুনিয়া থেকে বিদায় নেবে !
দয়াময় আল্লাহ তোমাকে খেলার ছলে সৃষ্টি করেন নি। দুনিয়ায় পাঠিয়ে তোমাকে অসহায় ভাবে ছেড়েও দেননি।

তোমার জীবনের উদ্দেশ্য এবং তা অর্জনের পথ তথা সত্য মিথ্যা যাচাই পূর্বক সত্যের দিশা পেতে তিনি যুগে যুগে পাঠিয়েছেন অসংখ্য নবী-রসুল, যাদের শেষ হলেন মুহাম্মাদ (সাঃ)।

সুতরাং তুমি কি সেই মহিমান্বিত আল্লাহ ও তদীয় রসুলের(সাঃ) আনুগত্যকে অপরিহার্য করে নেবে না?

অতএব এসো পবিত্র কুর’ আন ও সহীহ হাদীসের আলোকে জীবন গড়ি।
মুহাম্মাদ (সাঃ) হোক আমাদের
একমাত্র আদর্শ। অনুসরণ করি তাদের পথ যাদের উপরে
মহান আল্লাহর সন্তুষ্টি বিরাজমান, পরিহার করি
সেই পথ যে পথে আল্লাহর ক্রোধ ব্যতীত কিছুই পাওনা নেই।

এই মহতি উদ্দেশ্য সামনে রেখে কুর’ আন ও সহীহ হাদীস অধ্যয়নে নিজেকে নিয়োজিত করি, দূরীভূত করি ভ্রান্তি সমূহ, পরিশুদ্ধ করি অন্তরাত্মা
যা জাহান্নামের অযোগ্য এবং জান্নাতের খোরাক।

এসো, পরিশেষে আর একবার দৃঢ়চিত্তে শপথ গ্রহণ করি, আল্লাহ ও তদীয় রসুল(সাঃ) এর একনিষ্ঠ আনুগত্যের।

আল্লাহ আমাদের সহায় হোন ।
আমীন ।
❈❶. আইনের শাসন না থাকা।

❈ ❷. নারীর অশালীন পোশাক

❈ ❸. পুরুষের মানসিক ও নৈতিকতার অবক্ষয়।

❈ ❶. আইনের শাসনঃ
আমার দুঃখ হয়, যেই দেশের প্রধানমন্ত্রী নারী, বিরধী দলিও নেত্রী নারী, জাতীয় সংসদের স্পিকার নারী ... ,, নারী নীতিসহ অসংখ্য আইন ও সুবিধা নারীর পক্ষেই কথা বলে, সেই দেশে প্রতিদিন প্রতি মূহুর্তে বিরামহীন ভাবে একটার পর একটা নারী ও শিশু ধর্ষণের ঘটনা ঘটেই যাচ্ছে, অথচ একটা ধর্ষক ও উপযুক্ত সাস্তি পাচ্ছে না .... !!

➾ যেই দেশে একজন বিবাহিত পুরুষ তার স্ত্রীর প্রতি অন্যায় অবিচার করুক বা না করুক স্ত্রী চাইলে আইনের সহায়তায় স্বামির ১২টা বাজিয়ে ছেড়ে দিতে পারে। সেই দেশের আইন আদালত পুলিশ প্রশাসন ধর্ষণ প্রসঙ্গে এতটা নিশ্চুপ কেন !?! জাতীর প্রশ্ন ??

➾ একটা বা দুইটা ধর্ষক কে যদি শিরোচ্ছেদ করা হতো কিংবা কোমড় পর্যন্ত মাটিতে পুতে পাথর নিক্ষেপ করে হত্যা করা হতো অথবা ফাঁসির কাষ্ঠে ঝুলিয়ে মৃত্যু দন্ড কার্যকর করা হতো .... ,, বাংলার মাটি থেকে ধর্ষণ নামক শব্দটি চিরতরে মুছে যেত। আমি মনে করি ধর্ষণের অন্যতম প্রধান কারন হচ্ছে, আইনের বাস্তবায়ন না থাকা।

❈ ❷. নারীর অশালিন পোশাকঃ
যখন কোন অশালীন ও যৌন উত্তেজোক পোশাক পরিহিতা যুবতী মেয়েদের দেখে যুবকদের যৌন উত্তেজনা বেড়ে যায়, তখন ইচ্ছে হলেই ঐ মেয়ের সাথে দৈহিক সম্পর্কে মিলিত হওয়া সম্ভব নয়। তাই উত্তেজনা মেটাতে বিকল্প পন্থা হিসেবে বেছে নেয় একজন পর্দানশীল নারী ও শিশুকে, দুধের সাধ ঘোলে মেটানোর মত। একটু ভাবলেই বুঝা যায় এখানে ও বেপর্দা ও অশালীন পোশাক পরিহিতা নারীর বলির শিকার হলো পর্দানশীল একজন নারী বা শিশু।

➾ (ক) পর্দানশীল নারী ও শিশু, এরা হচ্ছে স্বাভাবিক সুন্দর রাস্তার মত ত্রুটি মুক্ত।
(খ) বেপর্দা ও অশালীন পোশাক পরিহিতা নারী, এরা হচ্ছে পিচ্ছিল রাস্তার মত।
(গ) চরিত্রবান পুরুষ, এরা হচ্ছে সুস্থ সবল পথিকের মত।
(ঘ) চরিত্রহীন পুরুষ, এরা হচ্ছে প্রতিবন্ধী/পঙ্গু পথিকের মত।

➾ স্বাভাবিক রাস্তা/পর্দানশীল নারী ও শিশুঃ একজন সুস্থ সবল পথিক যেমন স্বাভাবিক রাস্তায় হোচঠ খায় না তেমনি চরিত্রবান পুরুষেরা কখনো পর্দানশীল নারী ও শিশুদের প্রতি কু-দৃষ্টিতে তাকায় না। প্রতিবন্ধী/পঙ্গুদের জন্য যেমন স্বাভাবিক রাস্তাও নিরাপদ নয় সেখানে ও যেমন হোচঠ খাওয়াটা অস্বাভাবি নয়। তেমনি চরিত্রহীন লম্পটদের কাছে পর্দানশীল নারী ও শিশুরা ও নিরাপদ নয়, এরা ও যৌন লালসার শিকার হওয়া অস্বাভাবিক নয়।

➾ পিচ্ছিল রাস্তা/বেপর্দার নারীঃ এই রাস্তায় সুস্থ সবল পথিক এবং প্রতিবন্ধী/পঙ্গু উভয়েরি হোচঠ খাওয়ার সম্ভাবনা থাকে, তবে প্রতিবন্ধী/পঙ্গুদের জন্য সম্ভাবনা অনেক গুন বেড়ে যায়। চরিত্রহীন প্রতিবন্ধী/পঙ্গু পুরুষ যদি দেখা পায় পিচ্ছিল রাস্তার মত অশালীন পোশাক পরিহিতা আবেদনময়ী নারীর তাহলে তো কোন কথাই নাই। শুধু ফেসবুকের চমক আর সংবাদ পত্রের শিরোনাম ও হেড লাইনের আবিস্কার। এটাই বাস্তব সত্য, পিচ্ছিল রাস্তায় হোচঠ খেয়ে পড়ে গেলে কেউ কখনো পথিকের দোষ দেয় না, সকলে রাস্তারি দোষ দেয়। একজন নারীও যদি রাস্তার মধ্যে পাছাড় খেয়ে পড়ে যায় সেও নিজের কোথায় লেগেছে সেইটা দেখার আগে খুজে রাস্তার দোষ অর্থাৎ রাস্তার মধ্যে খুটা গর্থ বা পিচ্ছিল কি না।

❈ ❸. পুরুষের মানসিক ও নৈতিকতার অবক্ষয়ঃ
অশালীন পোশাক পরিহিতা একটি মেয়ে যখন রাস্তা দিয়ে হেটে যায় হাজার হাজার পুরুষ মানুষ তাকে দেখতে পায় কিন্ত সবাই তো ধর্ষণ করে না, ধর্ষন করে মাত্র দু'একজনে। পুরুষের মানসিক ও নৈতিকতা যদি দায়ী না হতো, একতরফা নারীর অশালীন পোশাক-ই দায়ী হতো তাহলে হাজার বা লাখে দু'একজনে ধর্ষণ করতো না প্রত্যেকটি পুরুষ মানুষেই ধর্ষণ করতো। অশালীন পোশাক পড়া মেয়েটি সর্বপ্রথম যার সামনে পড়তো সেই ধর্ষন করতো।

➾ আজকে যে সকল পুরুষেরা নারীর অশালীন পোশাক ও ধর্ষণ প্রসঙ্গে কথা বলছেন, কই আপনার চোখের সামনে দিয়ে ও তো প্রতিদিন অশালীন পোশাক পরিহিতা কত নারী হেটে যাচ্ছে আপনিতো ধর্ষন করছেন না, কিন্তু কেউ না কেউ ঠিকই ধর্ষণ করছে। এখানেই তো আপনার আর একটা ধর্ষকের মধ্যে মানসিক ও নৈতিকতার পার্থক্য রয়েছে। এটাই প্রমান করে ধর্ষণের জন্য একতরফা নারীর অশালীন পোশাক-ই দায়ী নয়, পুরুষের মানসিক ও নৈতিকতাও দায়ী।

❈❈ উপসংহারঃ নারীর জন্য যেমন পর্দা ফরজ করা হয়েছে তেমনি পুরুষের ও দৃষ্টি সংযোত রাখতে বলা হয়েছে। অন্যের কাধে দোষ চাপিয়ে নিজের দায় এড়িয়ে যাওয়ার কোন সুযোগ নেই। নারী পুরুষ সকলকেই বুজতে হবে আমার জান্নাত জাহান্নাম কারো কর্ম বা পাপ পূণ্যের উপর নির্ভর করে না, আমার জান্নাত জাহান্নাম আমার কর্ম এবং পাপ পূন্যের উপর-ই নির্ভর করে। সূতরাং কে অশালীন পোশাক পড়লো না লেংটা থাকলো, কে ধর্ষণ করলো না নেশা করলো, ভালো করলো না মন্দ করলো সেটা আমার কাছে বড় নয়। বরং আমি কি করলাম সেটাই আমার কাছে বড়।

--- নাইম হোসেন

সংকলনে...এম, রহমান।
সাপ্তাহিক কুইজ ক্যাম্পেইন

উত্তর দাও জিতে নাও মোবাইল রিচার্জ

এক লোক দোকানে গিয়ে একটি ড্রেস দেখল

ড্রেস এর দাম ৯৭ টাকা। সে তার মা এর কাছ থেকে ৫০ টাকা এবং তার বাবার কাছ থেকে ৫০ টাকা ধার নিল।


ড্রেস টি কেনার পরে তার কাছে রইলো ৩ টাকা। তা থেকে সে তার বাবা কে ফেরৎ দিলো ১ টাকা, মা কে ফেরৎ দিল ১ টাকা। তার কাছে রইলো ১ টাকা।


এখন তার মা পাবে ৪৯ টাকা+তার বাবা পাবে ৪৯ টাকা+তার কাছে আছে ১ টাকা


মোট ৪৯+৪৯+১=৯৯ টাকা


তাহলে বাকী ১ টাকা গেলো কই??




কমেন্ট দাতাদের মধ্য থেকে লটারির মাধ্যমে বিজয়ী নির্বাচন করা হবে।
রকীয়া প্রেমেরটানে এবার মাদারীপুর জেলার কালকিনি উপজেলাতে আসলাম হোসেন(৩৮) দুলাভাই এর হাত ধরে মেঝ শ্যালিকা (২২) পালিয়েছেন। এতে করে ঐ এলাকাজুড়ে দারুন চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতির সৃস্টি হয়। এ ঘটনায় আসলাম এর প্রথম স্ত্রী ও শশুর কালকিনি উপজেলার ডাসার থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করেন। স্থানীয়য় এলাকাবাসীর সুত্রে জানা যায় কালকিনি উপজেলার বালীগ্রাম এলাকার সুনমন্দি গ্রামের লালমিয়া জমাদ্দার এর বড় মেয়ের সাথে মানিকগঞ্জ জেলার ঘিওর উপজেলার বাইজুরি গ্রামের সাইদ মিয়ার ছেলে আসলামের (৯) নয় বছর আগে বিয়ে হয়।
বৈবাহিক আন্তীয়তার সুত্রে আসলাম তার শশুরবাড়িতে ঘনঘন যাতায়াত করত। যাতায়াত এর এক পর্যায় আসলাম ও তার মেঝ শ্যালিকা পরকীয় প্রেমে জড়িয়ে যায়। এই পরকীয়র সুত্র ধরে সবার চোখ পাখি দিয়ে আসলাম তার প্রথম স্ত্রী ফেলে রেখে শ্যালিকা নিয়ে উদাও হয়। এদিকে তাদের কোন খোজ না পেয়ে আসলামের প্রথম স্ত্রী ও শশুর ডাসার থানায় একট অভিযোগ দায়ের করেন। এবিষয়ে আসলামের প্রথম স্ত্রী বলেন আমার স্বামি আমাকে ফেলে আমার বোনকে নিয়ে পালিয়েছে তাই আমরা থানায় অভিযোগ দায়ের করতে এসেছি। আসলামের শশুর জানান তাদের অনেক খোজাখুজির পর না পেয়ে নিরুপায় হয়ে থানায় ডায়রি করতে এসেছি। তারা কোথায় আছে জানিনা। এবিষয়ে ডাসার থানার এসআই মিথুন বলেন বিষয়টা নিয়ে থানায় একটি অভিযোগ হয়েছে আমরা বিষয়টা খতিয়ে দেখছি।

টি এম কবির হোসেন


দুরান্ত বার্তা, ঢাকা

জ ১১ এপ্রিল বাংলাদেশ ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি জনাব সাইফুর রহমান সোহাগ তার নিজস্ব ফেইসবুক ওয়ালে লিখেন সরকারি চাকুরিতে কোনো কোটা থাকবেনা৷ এ ব্যাপারে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিশ্চিত করেছেন৷ নিচে তার লেখা হুবহু তুলে ধরা হলো৷

বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা যা বলেন তা করেন।
বিগত দিনে কোটা পদ্ধতি সংস্কার নিয়ে চলমান আন্দোলনের প্রেক্ষিতে ছাত্র সমাজের পক্ষ থেকে আজ সকালে আমরা (সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক বাংলাদেশ ছাত্রলীগ) মাননীয় প্রধান মন্ত্রীর সাথে সাক্ষাত করি। তিনি বলেন ' সরকারি চাকুরীতে কোন কোটা পদ্ধতি থাকবেনা'। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তকে ছাত্রসমাজ সাধুবাদ জানায়। অশেষ কৃতজ্ঞতা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর প্রতি। জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু



দুরন্ত বার্তা - ১১ এপ্রিল ২০১৮
তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগ সম্মেলন, অশ্রুসিক্ত নয়নে বিদায় নিলেন সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক।

আজ ৯ এপ্রিল ২০১৮, ঐতিহ্যবাহী সরকারি তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগ সম্মেলন। সম্মেলনে উপস্থিত থাকার কথা থাকলেও কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ সভাপতি সাইফুর রহমান সোহাগ, সাধারণ সম্পাদক এস এম জাকির হোসেন অনুষ্ঠানে উপস্থিত হতে পারেন নি। অনুষ্ঠানে উপস্থিন ছিলেন সরকারি তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এবং ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় নির্বাহী সংসদের সহ-সভাপতি সফিকুল ইসলাম বাসেক। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন সাবেক সভাপতি কাজী মিরাজুল ইসলাম ডলার, সাবেক সাধারণ সম্পাদক মানিক হোসেন মানিক সহ আরো অনেকে।



সম্মেলনে কাজী মিরাজুল ইসলাম ডলার বক্তব্য শেষে কান্নায় ভেঙ্গে পরেন।  সেই সাথে তাকে বিদায় দিতে ছাত্রদের ও কান্না করতে দেখা যায়। কাজী মিরাজুল ইসলাম ডলার ও মানিক হোসেন এর সুষম পরিচালনায় দীর্ঘ ৫ বছর অতিবাহিত করেন তারা। নতুন নেতা কর্মীদের সাদরে গ্রহন করার মতবাদ ব্যাক্ত করে সকলের কাছ থেকে বিদায় নেন তারা।

 

সম্মেলনে আজ সারাদিন ক্যাম্পাস ছিল শ্লোগান মুখোর। ক্যাম্পাসের মুল ফটোক থেকে শুরু করে অডিটরিয়াম সহ ক্যাম্পাস এলাকা শ্লোগানে মুখরিত ছিল। এদের মধ্যে জনপ্রিয়তার সর্বোচ্চ পর্যায়ে ছিল মাহমুদুল হক জুয়েল মোড়ল ও মারুফ হোসেন



 

তাদের সমর্থিতরা শ্লোগানে ক্যাম্পাস অঙ্গনে স্লোগানের ঝড় তুলে। মারুফ হোসেন সমর্থিত ছাত্রনেতারা কলেজ থেকে শুরু করে ব্র্যাক বিশ্ববিদ্যালয় হয়ে আবার কলেজ ক্যামাস পর্যন্ত শ্লোগানের হাওয়ায় ভাসিয়ে দেয়। সর্ব স্তরের মানুষের কাছে পৌঁছে তাদের নাম।

এ ছাড়া সম্মেলনে রিপন মিয়া, গাজি সবুজ, সহ আরো অনেকের নাম শোনা যায়।

তবে কে হচ্ছেন এবারের ছাত্রনেতা সে বিষয়ে স্পষ্ট কোনো নির্দেশনা এখনো পাওয়া যায়নি।

দুরন্ত বার্তা - ৯ এপ্রিল ২০১৮

২৬ বছর পর প্রথম বারের মত আনুষ্ঠানিক ভাবে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে ঐতিহ্যবাহী সরকারি তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগ সম্মেলন৷ আগামী ০৯ এপ্রিল সরকারী তিতুমীর কলেজে সকাল ১০ঘটিকায় শুরু হবে এ সম্মেলন৷

এ সম্মেলনে সবচেয়ে যে নাম গুলো আলোচিত হচ্ছে তারা হচ্ছেন

১. মাহমুদুল হক জুয়েল মোড়ল

২. মোঃ রিপন মিয়া

৩. গাজী হামীদুর রহমান সবুজ

৪. মারুফ হোসেন

সম্মেলন উপলক্ষে কলেজ প্রাঙ্গণ এখন ব্যানার ফেস্টুন আর নবাগত ছাত্রনেতাদের পদচারনে মুখরিত৷


জানা যায় তিতুমীর কলেজ ছাত্রলীগের বিলুপ্ত হতে যাওয়া কমিটির বয়স ৫ বছর প্রায়৷ উক্ত কমিটির সভাপতি ছিলেন কাজী মিরাজুল ইসলাম ডলার৷ এবং সাধারণ সম্পাদক ছিলেন মানিক হোসেন৷ তাদের সুষম ছাত্র নেতৃত্বে দ্বীর্ঘদিন সুনামের সাথে পরিচালিত হয় ছাত্রলীগ কমিটি৷ আশা, আকাঙ্খা, রাগ অভিমান সব মিলিয়ে হতে যাচ্ছে দ্বীর্ঘ অপেক্ষার সম্মেলন৷



দুরন্ত বার্তা - ৮ এপ্রিল ২০১৮

মাদারীপুরের সদর থানার হুগলী গ্রামের রাস্তায় যাত্রীবাহী ভ্যান ও হাল চাষের ট্রাক্টারের মুখমুখি সংঘর্ষে পা হারালো এস.এস.সি. পরীক্ষার্থী। জানা যায় সে আদিত্যপুর গ্রামের খোয়াজ বাড়ির সাজাহান খোয়াজ এর মেয়ে শুভ আক্তার।

মাদারীপুর এর আলগী স্কুল থেকে এস.এস.সি. পরিক্ষা শেষ করে ঢাকা ছুটিতে বেড়াতে যায়। কিছু দিন পর আজ গ্রামে ফেরার পথে ভ্যানে থাকা মেয়েটির উপর দিয়ে হাল চাষের ট্রাক্টর উঠে যায়। এতে ঘটনা স্থলেই তার ডান পা সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়।


স্থানীয় বাসিন্দা মমতাজ বেগম তার এই ভয়াবহ অবস্থা দেখে দ্রুত হাসপাতালে পাঠানোর ব্যাবস্থা করেন। সদর হাসপাতালে তাকে ফেরত পাঠানো হয়। সেখানকার ডাক্তারগণ তার অবস্থার ভয়াবহতা দেখে ঢাকা পঙ্গু হাসপাতালে পাঠায়। মেয়েটি এখন এক পা হারিয়ে বাকরুদ্ধ হয়ে গেছে। ট্রাক্টরের ড্রাইভারকে আটোক করা হলেও তাকে খাদনশি গ্রামের আহাদ নামের এক জনের জিম্মায় নিয়ে যাওয়া হয়। এ ব্যাপারে থানায় কোনো ডাইরি করা হয় নি।


 

ভিডিওঃ



 


দুরন্ত বার্তা - ৬ এপ্রিল ২০১৮



আমরা মানুষ, রক্ত মাংসে গড়া স্বাধীন চেতনা সম্পন্ন উন্নত প্রাণী। আমরা যন্ত্র নই। কিন্তু রক্ত মাংস ও স্বাধীনচেতা মননের যিনি স্রষ্টা তাঁর প্রতি কৃতজ্ঞতা আদায়ের পালা যখন আসে তখনই যান্ত্রিকতা আমাদের ধাওয়া করতে থাকে।

সেই অযু করা থেকেই শুরু। হাতের আঙ্গুল, মুখ, নাক কনুই পর্যন্ত হাত অথবা মাথা মাসাহ করার সময় থেকে নিয়ে পা ধোয়া পর্যন্ত শুধু ধুলোবালি সাফেই মগ্ন থাকে হাত দুটি আর মনটা তখনো দুনিয়ার কাজের ভিড়ে হারিয়ে থাকে।

ইস! যদি ধুলোবালির সাথে সাথে আমার ধৌতকৃত প্রতিটি অঙ্গের পাপ সমূহ এমন ধুয়ে যেতো- কতইনা ভালো হত। সে সুযোগও ছিল। শুধু একটু চাওয়া, তাঁর কাছে যিনি দিতে ক্লান্ত হন না।

আসুন না
সালাতে একটু যত্নবান হই। আমাদের সালাতকে একটু পরিপাটি করে সাজাই। আন্তরিক ও গুনাহ বিধৌতকরনে সক্ষম অযু দিয়েই শুরু হোক পরিশুদ্ধ
সালাতের পথচলা।

এরপর নিয়ত করি এমন সালাতের যা আল্লাহ্র নিকটে গ্রহণযোগ্য হবার দাবীতে
অগ্রণী। তাকবীরে তাহরীমায় হারাম করি দুনিয়ার সবকিছু- সকল খেয়াল নিমগ্ন করি এক আল্লাহ্র প্রতি, যিনি রয়েছেন আপনার সম্মুখেই, যিনি দেখছেন আপনার যান্ত্রিকতামুক্ত আন্তরিকতা।

এরপর সরাসরি চলে যাই আল্লাহ্র অভেদ্য আশ্রয়ে- বিতাড়িত শয়তান হতে। আল্লাহ্র নামে শুরু করি যিনি রহমান, রহিম।

আসুন, আমরা আমাদের গুনাহের মধ্যে এমন দূরত্ব করে নিই, যেমন দূরত্ব আছে পূর্ব আর পশ্চিমের মধ্যে।

পাপ সমূহ এমন ভাবে নিংড়ে নিই, যেমন করে ময়লা কাপড় সমূহ হতে নোংরা নিংড়ে নেওয়া হয়। আমরা আমাদের গুনাগুলিকে বিধৌত করি পানি দ্বারা, বরফ ও শিলাবৃষ্টি দ্বারা। হ্যাঁ, তিনিই এগুলি শিখিয়েছেন, যিনি এগুলি দিতে চান।

অতএব আর দেরী নয়-
আল্লাহ্'র প্রশংসা করি- রহমান, রহিম বিশ্বচরাচরের প্রতিপালক,বিচার দিবসের মালিক যিনি। ঘোষণা করি তাওহীদ এ ইবাদতের। অতঃপর চেয়ে নিই সীরাত্ব এ মুস্তাকীম- সেই পথ যে পথ সলেহীনদের, অভিশপ্ত ও গযবপ্রাপ্তদের পথ হতে পানাহ চাই।

এরপর একে একে সালাতের সকল আরকান আহকামের প্রতি সুবিচার করে বিনয় ও নম্রতাকে সাথী করে তাসলীমের মাধ্যমে সালাত সম্পাদন করি।

আসুন, সালাত আদায় করি- যান্ত্রিক নয়, আন্তরিক ভাবে।
মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল রাখার ঘোষনায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীকে অভিনন্দন জানাতে আজ মুক্তিযোদ্ধা সন্তান ও প্রজন্ম সমন্বয় পরিষোধ কর্তৃক জাতীয় প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলন আয়োজন করা হয়৷



অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন "বীর মুক্তিযোদ্ধা জনাব, শাজাহান খান এম. পি.(মাননীয় নৌ-পরিবহন মন্ত্রী)"

বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনাব "মাহবুব উদ্দিন আহমেদ বীরবিক্রম"

এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন মুক্তিযোদ্ধা সংসদ সন্তান কমান্ডের সাধারন সম্পাদক "জনাব আসিব খান" সরকারি তিতুমীর কলেজের সাংগঠনিক সম্পাদক "মারুফ হোসেন জয়"

সকল মুক্তিযোদ্ধাদের সন্তানদের ঐক্যবদ্ধ হবার জন্য আহ্বান করেন জনাব শাজাহান খান৷

সম্মেলনে উপস্থাপনা করেন জনাব "কাজী রুবেল"




জনাব শাহজাহান খান বলেন- যুদ্ধ শেষ হয়ে যায়নি, যুদ্ধ এখনো চলছে৷



তোমাদের এগিয়ে যেতে হবে৷ রাজাকার আলবদরদের বিরুদ্ধে৷ আজ জঙ্গী, মাদক, নারী নির্যাতনের মাধ্যমে যুব সমাজকে ধ্বঃস করে দেয়া হচ্ছে৷ এদের বিরুদ্ধে সকলকে সচ্চার হতে হবে৷ যে চক্রান্তের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করা হয়েছিলো৷ সে ষড়যন্ত্র বাংলাদেশকে এগিয়ে যেতে বাধার সৃষ্টি করতে সর্বদা তৎপর৷ আমরা যুদ্ধ করে স্বাধীনতা এনে দিয়েছো৷ তোমাদের যুদ্ধ সেই স্বাধীনতাকে রক্ষা করা৷ এ যুদ্ধে তোমরা এক এক জন সৈনিক৷

বক্তব্য শেষে উপস্থিত সন্তানদের শপথ পাঠ করান মাননীয় মন্ত্রী৷


দুরন্ত বার্তা-৩ এপ্রিল ২০১৮

নিকৃষ্ট মানুষ তারাই, যারা অন্যের ক্ষতি করার জন্য ও বন্ধুদের মধ্যে বিচ্ছেদ ঘটানোর জন্য কুৎসা রটায় এবং ভালো মানুষের ছিদ্রান্বেষণ করে।
★★★★★ মিশকাত শরীফ★★★★★
নের চোখ সুন্দর হলে পৃথিবীর সব সুন্দরকে দেখা যায়, মহাসুন্দর আল্লাহ পাককে বোঝা যায়। ইহকালে যে অন্ধ পরকালেও সে অন্ধ, সে কখনও মাওলার জ্যোতি দেখে না।

একটি অসংবেদনশীল কানের কাছে যেমন পৃথিবীর শ্রেষ্ঠতম আল্লাহ শব্দটি গুরুত্বহীন, তেমনি একটি অন্ধ মনের কাছে মহান শিল্পী আল্লাহর গড়া এ সুন্দর পৃথিবী বড়ই অর্থহীন।


কত সুন্দর এ পৃথিবী!সারি সারি পাহাড়-পর্বত,মেঘ থেকে ফোঁটা ফোঁটা বৃষ্টি ঝরা, কূল-কিনারাহীন সমুদ্র, সবুজ বন-বনানী, নানা আকৃতির নানা বর্ণের পশু-পাখি,বৃক্ষ-লতা, ফুল-ফল, আকাশে কোটি কোটি তারার ঝিলিমিলি,
চাঁদের মিষ্টি রূপ! আল্লাহপাক নিজে সুন্দর, তাই তিনি তাঁর সৃষ্টিকেও বড় সুন্দর করে সৃষ্টি করেছেন। তাঁর শ্রেষ্ঠ সৃষ্টি মানুষকেও তিনি দিয়েছেন সর্বসুন্দর অবয়ব। ‘আমি মানুষকে সর্বসুন্দর অবয়বে সৃষ্টি করেছি।’ (সূরা ত্বীনঃ আয়াত : ৪) এজন্যই সুন্দর ভুবনে বেঁচে থাকার কত না আকুতি মানুষের। তবু তাকে চলে যেতে হয় অর্থ, যশ, স্বজন এবং সুন্দর পৃথিবী ছেড়ে।


তোমরা যেখানেই থাক না কেন, মৃত্যু তোমাদের নাগাল পাবেই, যদিও তোমরা কোনো শক্ত ও সুদৃঢ় দুর্গে অবস্থান করো।’ (সূরা নিসা-৭৮)।

জলবুদ্বুদের মতো
মানবজীবন নিতান্তই ক্ষণিকের। চোখের পলকে স্বপ্নে
বিভোর জীবন কখন যে ফুরিয়ে যাবে টেরও পাওয়া যাবে না। তাই প্রতিটি মানুষকে সময় থাকতে তিলে তিলে জীবনের মূল্যায়ন করতে হবে। ক্ষণিকের এ পার্থিব জীবনকে নেক আমলের ফুলে-ফসলে সাজাতে না পারলে দুনিয়াবি জীবন হবে বড় আফসোসের,আর পরকাল হবে ভীষণ
যন্ত্রণাদায়ক।

মহান আল্লাহপাক আমাদের সহীহ পথে চলার ও নেক আমল করার তৌফিক দান করুন। আমিন।

দুরন্ত বার্তা - ঢাকা

চ্যানেল ২৪ এর জাগো বাংলাদেশ নামক অনুষ্ঠানে মেয়েদের পোশাক নিয়ে বিরূপ মন্তব্য করার কারনে সমালোচনার মুখে পড়েন অভিনেতা মোসারফ করিম। ফেইসবুক সহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তার ছবিতে জুতাপেটা করার ছবিও পাওয়া গেছে। গতকাল ২৩ মার্চ রাত ২ঃ২৪ মিনিটে তিনি তার ফেরিফাইড পেইজে সকলের উদ্দেশ্যে ক্ষমা প্রার্থনা করেন। তার লেখা হুবুহু তুলে ধরা হল
চ্যানেল ২৪ এর আমার উপস্থাপিত একটি অনুষ্ঠানের একটি অংশে আমার কথায় অনেকে আহত হয়েছেন। আমি অত্যন্ত দুঃখিত। আমি যা বলতে চেয়েছি তা হয়ত পরিষ্কার হয়নি। আমি পোষাকের শালীনতায় বিশ্বাসী। এবং তার প্রয়োজন আছে। এই কথাটি সেখানে প্রকাশ পায়নি। ধর্মীয় অনুভূতি তে আঘাত করা আমার অভিপ্রায় না। এ ভুল অনিচ্ছাকৃত । আমি অত্যন্ত দুঃখিত । দয়া ক রে সবাই ক্ষমা করবেন ।



 

ভিডিওঃ


মিমজাল হোসেন অনিক


দুরন্ত বার্তা, ২৪ মার্চ ২০১৮

নপ্রিয় অভিনেতা মোসারফ করিম নারীদের পোশাক নিয়ে সমালোচনা করে সে এখনকার সামাজিক যোগাযোগের সমালোচনার প্রধান কেন্দ্র হয়ে দারিয়েছে। মোসারফ করিম চ্যানেল২৪ এ জাগো বাংলাদেশ নামক এক অনুষ্ঠানে বোরখা নিয়ে মন্তব্য করে বলেন পোশাক নারী নির্যাতনের জন্য দায়ী নয়। এ ধরণের পোশাক দিয়ে মেয়েদের এক ধরণের বন্দি করে রাখা হয়েছে। এই সব পোশাক পড়ানোর জন্য যারা জোর দেয় তারা নিজেদের সাথে পেরে উঠে না বলেই তারা এ ধরণের পোশাকের পক্ষে কথা বলে । এই ঘটনার পরে তাকে নিয়ে শুরু হয়ে সামাজিক যোগাযোগে সমালোচনার ঝর। তাকে জুতা পেটা করে ভিডিও পোষ্ট করেন অনেকেই। সেই সাথে দেখা যায় তার ছবিতে জুতা মেরে অনেকেই ফেইসবুকে আপলোড দেয়। তাদের একটি কথা। তুমি মানো না তোমার ব্যাপার। আরেক জনের ব্যাক্তিগত বিষয়ে কথা বলার তুমি কে? মোসারফ করিম পোশাক নিয়ে কথা বলে যে সমালোচনার মুখে পরেছে। দেখা যাক তার শেষ কোথায় হয়। তবে সমাজের অনেকেই তার এই ধরণের মন্তব্যকে সমর্থন করছেন না। তারা বলে যারা অভিনয় জগতে কাজ করে তারা স্বাভাবিক জনগণের তুলুনায় অনেকটাই খোলা মেলা পোষাকে পর্দায় আসে। তার এ ধরণের মন্তব্য করা বেমানান। এ ছাড়া অনেকেই তার এ ধরণের মন্তব্য এর জন্য বিচারের দাবি জানান। কিছু প্রবাসী তার বিরুদ্ধে প্রতীবাদ স্বরূপ কিছু ভিডিও পোষ্ট করেন।

ভিডিওঃ

আল্টারনেটিভ ভিডিওঃ



ছবিঃ ফেইসবুক থেকে নেয়া


দুরন্ত বার্তা, ২৩ মার্চ ২০১৮

জিমপুরের বড় হুজুর মরহুম মাওলানা আব্দুল্লাহ সাহেব প্রতিষ্ঠিত ও জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের সাবেক খতীব মরহুম মাওলানা উবায়দুল হক সাহেব কর্তৃক পরিচালিত মাদরাসা ফয়জুল উলুম ১৯৭৫ সাল থেকে সুনামের সহিত ইসলামী শিক্ষা প্রদান করে আসছে। ঐতিহ্যবাহী আজিমপুর কবরস্থান সংলগ্ন মাদরাসা ফয়জুল উলুম,আজিমপুর, ঢাকা এর উদ্যোগে ১৪৩৮ -১৪৩৯ শিক্ষাবর্ষের দাওরায় হাদীস (মাষ্টার্স) ও হিফজুল কুরআন সমাপনকারী ছাত্রদের মাঝে পাগড়ী প্রদান ও দোয়া মাহফিল গতকাল ২০ মার্চ ২০১৮ তারিখে অনুষ্ঠিত হয়।




মাদরাসার ফারেগীন ছাত্রগণ বাংলাদেশ তথা সারাবিশ্বে অত্যন্ত সুনামের সাথে দ্বীনি দায়িত্ব পালন করছে। প্রতি বছরের ন্যায় এবারও মাদরাসা থেকে ১৯ জন মাওলানা ও ১২ জন হাফেজ ছাত্রকে পাগড়ী প্রদান করা হয়। উক্ত পাগড়ী প্রদান মাহফিলে উপস্থিত ছিলেন নূরীয়া মাদরাসার (কামরাঙ্গীরচর) ও অত্র মাদরাসার প্রবীণ শায়খুল হাদীস হযরত মুফতী মাওলানা সোলাইমান নোমানী সাহেব,গওহর ডাঙ্গা ও অত্র মাদরাসার সিনিয়র শায়খুল হাদীস মুফতী মাওলানা আব্দুর রউফ (ঢাকার হুজুর) সাহেব। বিশেষ দ্বীনি বয়ান প্রদান করেন বড় ভাট মসজিদের (লালবাগ) ইমাম ও খতীব মুফতী মাওলানা তানভীর আহমাদ সিদ্দিকী সাহেব ও আরো অন্যান্য ওলামায়ে কিরাম ফারেগীন ছাত্রদের মাঝে গুরুত্বপূর্ণ নসিহত পেশ করেন। উক্ত মহতী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন মাদরাসার সাধারন সম্পাদক ও মুহতামিম হযরত হাফেজ মাওলানা ছাখাওয়াতুল্লাহ সাহেব।




নাইম হোসেন সেলিম

দুরন্ত বার্তা, ২০ মার্চ ২০১৮
ড়ঋতুর বাংলাদেশে শীতের পরেই শুরু হয় গরমের প্রখরতা। বাংলাদেশে এই সময়ে সূর্য খাড়া ভাবে কিরণ দেয়। তাই আমাদের বাংলাদেশে প্রচুর তাপের বৃদ্ধি পায়। এ সময়ে আমাদের শরীরীয়ের ঘামের পরিমাণ বেশি হয়, যার ফলে আমাদের শরীর থেকে প্রচুর পানি বেরিয়ে যায়। আর সেই ঘাটতি পূরণের জন্য আমাদের প্রতিদিন পর্যাপ্ত পরিমাণে পানি পান করা উচিত ।

তবে কি পরিমাণ পানি এই গরমে পান করা উচিত তা আমাদের জেনে নেওয়া উচিত। আসুন আজ আমরা জেনে নেই এই গরমে আমাদের কি পরিমাণ পানি পান করা উচিত এবং ঠান্ডা পানি বেশি গ্রহনে কি ধরনের ক্ষতি হতে পারে।


প্রথমে জেনে নেই দৈনিক কতটুকু পানি আমাদের খাওয়া উচিতঃ এক জন সুস্থ মানুষের প্রতিদিন নুন্যতম ২ লিটার পানি পান করা উচিত। যদি এর থেকে কম পানি পান করে। তবে তার শরীরে জ্বালা পোড়া থেকে বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে। অনেকে পানির পাশাপাশি কোমোল পানিয় ফলের জুস ও অন্যান্য তরল গ্রহন করে থাকে। সে ক্ষেত্রে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হবে যাতে অতিরিক্ত পানি পান করা না হয়। অতিরিক্ত পানি পান করলে কিডনির বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে। যাদের গ্যাস্ট্রিকের সমস্যা রয়েছে তারা সকালে খালি পেটে পানি পান করবেন। পানি পান করার পরে অন্তত ২০-৩০ মিনিট বিরতি নিতে হবে।



খাবার খাওয়ার সময় পানি পান না করাই ভালো কেননা খাবার সময় পানি পান করলে জারক এসিড পাতলা হয়ে যায় ।

ঠান্ডা পানি যত সম্ভব পরিহার করুণ। গরমে অনেকেই ঠাণ্ডা পানি বা আইস শরবত খেয়ে থাকেন। কিন্তু এতে করে রক্তনালী সংকুচিত হতে পারে। এছাড়া খাদ্য হজমে সমস্যা পুষ্টিগুণ শোষণে বাধার সৃষ্টি করতে পারে। ফলে ডিহাইড্রেশন নামক রোগ হতে পারে।

কাজেই যত সম্ভব ঠাণ্ডা পানি গ্রহণের ব্যাপারে সতর্ক থাকুন ।



দুরন্ত বার্তা, ঢাকা - ১৯ মার্চ ২০১৮

  • প্রেমের প্রস্তাবে রাজি না হওয়ায় জামালপুর পৌরসভার রশিদপুরে এক ছাত্রের মুখে এক ছাত্রী এসিড নিক্ষেপ করেছে বলে অভিজোগ পাওয়া গেছে। মাহমুদুল হাসান মারুফ নামের ঐ ছেলে জানায়, মেয়েটি তাকে বার বার প্রেমের প্রস্তাব দিয়ে আসছিলো ৷ কিন্তু সে তাতে রাজী হয়নি ৷



এই ঘটনাটি ঘটে বৃহস্পতিবার রাতে ৷ ঘটনার দিন রাত ৯টার দিকে বন্ধুদের সাথে ঐ মেয়ে রিয়ার বাড়ির পাশ দিয়ে যাচ্ছিলো মারুফ ৷ তখন তাকে বিদ্যুত লাইন ঠিক করে দেবার অজুহাতে বাড়িতে ডাকে রিয়া ৷ কিন্তু মারুফ সেখানে যেতে অস্বীকার জানায় ৷ তখন হঠাৎ ঐ মেয়ে মারুফের মুখে তরল জাতীয় তথা এসিড নিক্ষেপ করে ৷ মারুফ তখন চিৎকার দিয়ে দৌড় দেয় ৷ এলাকাবাসী তাকে এসে উদ্ধার করে ৷ এতে মারুফের চোখ বাদে সমস্ত মুখ ঝলসে যায় ৷ সেই সাথে তার কাধেও কিছুটা ঝলসে যায় ৷ শুক্রবার আহত ছাত্র মারুফকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে নেয়া হয়।

মারুফ জামালপুর সরকারি টেকনিক্যাল স্কুল অ্যান্ড কলেজে ইলেকট্রনিকস টেকনোলজির প্রথম বর্ষের ছাত্র। অপরদিকে ঝাউগড়া কলেজের এইচএসসি প্রথম বর্ষের ছাত্রী ভাবনা আক্তার রিয়া ৷

এ ঘটনায় মারুফের বাবা দুদু মিয়া বাদী হয়ে জামালপুর সদর থানায় মামলা করেছেন। ছাত্রী ভাবনা আক্তার রিয়া ও তার মা হাসি বেগম সুজেদাকে আটক করেছে পুলিশ।

তবে রিয়া জানায় সে মারুফকে চিনে না ৷ আর ঘটনার রাতে তারা ঘুমিয়ে ছিলো ৷ তাদের ফাসানো হচ্ছে৷


শ্রীলংকার বিরুদ্ধে নিদাহাস কাপ ২০১৮ এর ৬ তম ম্যাচে বাংলাদেশ ২ উইকেটে জয় লাভ করেছে ।

১৬০ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে টাইগাররা ১ বল ও ২ উইকেট হাতে থাকতেই জয় লাভ করে । এর মদ্ধ দিয়ে বাংলাদেশ নিদাহাস কাপের ফাইলানে খেলার যোগ্যতা অর্জন করে । তামিম ইকবালের ৫০ রান এবং মাহমুদুল্লার ৪৩ রানের গতীতে বাংলাদেশ ফাইনালে । তামিম ইকবাল ৪২ বল থেকে ৫০ রান তুলে নেন । মাত্র ১৮ বল থেকে ৪৩ রান করেন মাহমুদুল্লা। এ ছাড়া মুশফিকুর রহিম ২৫ বল থেকে ২৮ রান করেন । সাব্বির রহমান ৮ বল থেকে ১৩ রান করেন । সৌম্য সরকার ১১ বল থেকে ১০ রান করেন। সাকিব-আল হাসান ৯ বল থেকে ৭ রান করে সাজ ঘরে ফিরে যান ।

 

শ্রীলংকার পক্ষে ধানাঞ্জয় ২টি আপন্সো ১টি গুনাথিলাকা ১টি জীবন মেন্ডিস ১টি উদানা ১টি করে উইকেট পান ।




মিমজাল হোসেন অনিক


দুরন্ত বার্তা